এক নজরে হাটশ হরিপুর ইউনিয়ন পরিষদের তথ্য বিবরণী

ক্রমিক নং

বিবরণ

তথ্য

ক্রমিক নং

বিবরণ

তথ্য

আয়তন ২০ বর্গ কি: মি ২৯ কমিউনিটি সেন্টার ৯টি
জনসংখ্যা ৪২,৫৭৫ জন ৩০ সেনিটেশন ব্যবস্থা ৯৪%
ভোটার সংখ্যা ১৭,৭৭০ জন ৩১ স্থায়ি পতিত জমি ৬৫০ হেক্টর
পুরুষ ৮,৯৬১ জন ৩২ সাময়িক প্রতিক ৩৪০ হেক্টর
মহিলা ৮,৭৭৫ জন ৩৩ স্থায়ী বন ৩৮ হেক্টর
  মোট ১৭,৭৭৫ জন   মোট জমির পরিমান ২৮৩০ হেক্টর
ওয়ার্ড সংখ্যা ০৯ টি ৩৪ ভিজিডি কাডের সংখ্যা ১৬১৩টি
গ্রামের সংখ্যা ১১টি ৩৫ ভিজি এফ কার্ডের সংখ্যা ১৬১৩টি
সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সংখ্যা ০৯ টি ৩৬ বয়স্ক ভাতা কার্ডের সংখ্যা ৫৮৮জন
বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সংখ্যা ৭ টি  ৩৭ বিধবা ভাতা কার্ডের সংখ্যা ২৮৬টি
১০ সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয় *** ৩৮ প্রতিবন্ধি ভাতা সংখ্যা ৮৬টি
১১ বেসরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয় ২টি ৩৯ এক ফসলী ১৭৭*১০ হেক্টর
১২ সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় *** ৪০ দুই ফসলী ৪৮৩*২৯৬হেক্টর
১৩ বেসরকারি উচ্চ বিদ্যালয় *** ৪১ তিন ফসলী ৩৪২*৩ হেক্টর
১৪ কলেজ ও বিশ্বব্যদ্যালয় *** ৪২ বেকার সংখ্যা ৭৫%
১৫ মাদ্রাসা ২টি ৪৩ মহিলা বেকার ২৫%
১৬ মক্তব ৪টি ৪৪ পুরুষ বেকার সংখ্যা ৫০%
১৭ মসজিদ ৫০টি ৪৫ বাড়ীর সংখ্যা ২০,০০০টি
১৮ মন্দির ১টি ৪৬ কাচা বাড়ী ৭০০০টি
১৯ শিক্ষিতর হার ৫৭% ৪৭ পাকা বাড়ী ১২০০০টি
২০ চাকুরি জীবি ১২% ৪৮ আধা পাকা বাড়ী ১০০০টি
২১ আবাদ জমির পরিমান ১০০২ হেক্টর ৪৯ আশ্রয়হীন ৬০০ জন
২২ অনাবাদি জমির পরিমান ৭০০ হেক্টর ৫০ পুরুষ ৩৫০জন
২৩ সেচের আওতায় *** ৫১ মহিলা ২৫০জন
২৪ পাকা রাস্তা ৭ কি: মি ৬টি  ৫২ সংস্থা নাম ও সংখ্যা, দিশা, আশা, জাগরণী চক্র, ব্র্যাক,গ্রামীন ব্যাংক, সেতু,বিআরডিপি, মুক্তিযোদ্ধা সংস্থা, শিক্ষা উপবৃত্তি সমাজ সংস্থা। ৭টি
২৫ কাচা রাস্তা ৬ কি: মি ৩৫ টি      
২৬ হাটবাজার ১টি      
২৭ স্বাস্থ্য কেন্দ্র সরকারি ১টি      
২৮ খেলার মাঠ ১টি      

এম, সম্পা মাহমুদ

চেয়ারম্যান, হাটশ হরিপুর ইউনিয়ন পরিষদ


মোবাইল নাম্বারঃ ০১৭১৮৭৭৫৯৭৫
টেলিফোনঃ 
ই-মেইলঃ shampamahmud@gmail.com
ফ্যাক্সঃ
নিজ জেলাঃ
স্থায়ী ঠিকানাঃ 
সর্বশেষ শিক্ষাগত যোগ্যতাঃ

মোঃ মশিউর রহমান

ইউ,পি সচিব


মোবাইল নাম্বারঃ ০১৭১১৪৫৬৩৬২
টেলিফোনঃ 
ই-মেইলঃ uisc.hatoshharipur1@gmail.com
ফ্যাক্সঃ
ব্যাচঃ 
বর্তমান কর্মস্থলে যোগদানের তারিখঃ ২০১৭-০৫-২২

ক্রমিক নং

নাম

ওয়ার্ড

এম, সম্পা মাহমুদ সার্বিক
জনাব, মোঃ গোলাম সরোয়ার ১নং হাটশ হরিপুর
জনাব, আবু বক্কার সিদ্দিক ২নং হাটশ হরিপুর
জনাব, মোঃ সেরিম বিশ্বাস ৩নং হাটশ হরিপুর
জনাব, মোঃ সালাম বিশ্বাস ৪নং বোয়ালদাহ
জনাব, মোঃ মবের প্রামানিক ৫নং বোয়ালদাহ
জনাব, মোঃ রাশিদুল ইসলাম ৬ নং পুরাতন কুষ্টিয়া
জনাব, সেলিম উদ্দিন ৭ নং শালদাহ
জনাব, রাজু আহমেদ ৮নং শালদাহ
১০ জনাব, বাবুল হোসেন ইমন ৯নং চরভবানী পুর
১১ জনাবা, মোছাঃ সালেহা বেগম ১,২,৩ নং
১২ জনাবা, মোছাঃ রুনা লাইলা ৪,৫,৬ নং
১৩ জনাবা, মোঃ আকলিমা খাতুন ৭,৮,৯ নং

 একদিল শাহ মাজার

বাবা একদিল শাহ কোথায় কোখন কিভাবে জন্ম গ্রহন করে তা সঠিক ভাবে জানা যায় নি, তবে বাদশা শাহাজানের সময় সপ্তদশ শতকের প্রথম দিকে কুষ্টিয়ার অসিত্মত্বের কথা জানা যায়। যা আজ হাটশ হরিপুর ইউনিয়নের অমত্মর্গত পুরাতন কুষ্টিয়ায়।
এই পুরাতন কুষ্টিয়ার শুরু হয় বিভিন্ন ধর্মের মানুষের বসতি স্থাপন।যার মধ্যে হিন্দু ধর্মের মানুষই বেশি। তখন বাবা একদিল শাহ ইসলাম ধর্ম প্রচার শুরু করেন।
সাধক একদিল শাহ তার প্রচার প্রচারনায় অনেক মানুষ ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করতে শুরু করে। তৈরী হতে থাকে মসজিদ শুরু হয় আযান দেওয়া। সেই সময় বারো মাসে তের পুঁজা নিয়ে মেতে উঠত হিন্দু মুসলমান সবাই।
পাঁচ/ছয়শত বছরের পুরাতন তৎকালীন পদ্মানদী তীরবর্তী একদিল শাহ নামক একজন আল্লাওলার দরগা। পুরাতন মুরুববীদের মুখে শুনেছি সমসত্ম দরগাহ ইটের দেওয়াল দিয়ে ঘেরা ছিল। যদি কেউ ভুল বশবর্তীতে দরগাহে ইট চুরি করে নিয়ে যেত তার বাড়ীতে ঘরের চালে অকারণে আগুন লেগে যেত, ইট ফেরত না আসা পর্যন্ত আগুন নিভতো না। জানা যায় তিনি নাকি পদ্মা নদী পানির উপর দিয়ে হেটে যেতে পারতেন। বহু স্থান থেকে মানুষ তার কাছে এসে মুরিদ হত। তিনি বহু অলোকিক শক্তির অধিকারী ছিলেন।
১৯৫১ সালে তিনি মুরীদ গনের বাড়ী এসে অসুস্থ হয়ে পড়লে মুরূদগণ কুষ্টিয়ার হাসপাতালে ভর্তি করেন এবং সেখানেই তিনি মৃত্যুবরণ করেন। মুরীদগণ তাঁর লাশ এই দরগাহ প্রঙ্গনে সমাহিত করেন। মুরীদগণ তাঁর স্মরনে প্রতি বছর মাজার প্রাঙ্গনে ওরশ শরীফ পালন করেন।

দরবেশ রেজওয়ান শাহ

দরবেশ রেজন শাহ কুষ্টিয়া সদর থানার হাটশ হরিপুর গ্রামে জন্ম গ্রহন করেন। তিনি ছিলেন চিসতিয়া তরিকার। তিনি একজন ভদ্র , নন্ম্র সভাবের মানুষ ছিলেন। সব সময় চুপচাপ বসে থাকতে ভালো বাসতেন। ভক্তরা আসলে আদ্ধ্যাতিক আলোচনা করতেন , গান করতেন।তার গুরুও নাম ছিল দরবেশ সাধন শাহ। তিনি যখন বেচে ছিলেন তখন লালন শাহের তিরোধান এর পরের দিন তার বাড়িতে সাধু সংঘ অনুষ্ঠান হত। বহূ এলাকা থেকে মানুষ এই অনূষ্ঠান দেখতে আসতেন। সমগ্র দেশে তার ভক্তরা ছিল। পাংসার এক ভক্ত দরবেশ রেজওয়ান শাহ এর নামে ১১ বিঘা জমি লিখে দেন। সেখানে প্রতি বছর রেজন শাহের নামে অনুষ্ঠান হয়। তিনি কোন দিন নেশা করেননি। তিনি মৃত্যুর আগে উনার বসতবাড়ির দেড় বিঘা জমি সরকারের নামে উইল কওে দিয়ে যান যাতে তার মৃত্যুর পর এই জমির মালিক তার অগনিত ভক্করা হয়ে যায়। বর্তমানে উক্ত ভিটার উপরই তার মাজার শরিফ অবস্থিত। তার মাজারের পাশেই মামুন নদীয়ার মাজার। 
এখন প্রতিবছর ১০ই ভাদ্র তার মাজারে অগনিত ভক্তদের উপস্থিতিতে অনুষ্ঠান হয়।

সূত্রঃ হাটশ হরিপুর ইউনিয়ন, কুষ্টিয়া সদর, কুষ্টিয়া